বর্তমানে বিশ্বব্যাপি ওয়েবসাইট একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আজকের দুনিয়ায় সারা বিশ্বে অনেক কাজেই ওয়েব সাইট ব্যবহার করা হয়ে থাকে। ব্যবসায়ের প্রচার থেকে শুরু করে পণ্যের কেনা-বেচা, যোগাযোগ, ভাবের আদান-প্রদান এমনি অনলাইন বিভিন্ন পেমেন্ট সিস্টেম ব্যবহারের মাধ্যমে লেনদেনও করা হচ্ছে। এই তথ্য প্রযুক্তি উন্নয়েন ফলে দিনদিন ওয়েব সাইটের ব্যপক ব্যবহার বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিশ্বের ছোট-বড় অনেক ব্যবসায় প্রতিষ্টান আজ ওয়েব সাইটের মাধ্যমে প্রতেক্ষ বা পরোক্ষভাবে তাদের সার্ভিস প্রদান করে থাকে। এমন কি আজকের দুনিয়ায় সকল ধরণের ব্যাংকিং সিস্টেমের মাধ্যমে লেনদেন আজ এই ওয়েব সাইট ব্যবহার করেই করা হচ্ছে। মানুষ বিভিন্ন ধরণের অনলাইন সার্ভিস, OTT ওয়েব সাইট ব্যবহার করে মুভি শো দেখার মত আরও অনেক কাজ করছে। যাই হোক এই ওয়েব সাইটের ব্যবহার বৃদ্ধির সাথে অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় হচ্ছে একটি ওয়েব সাইট তৈরির প্রক্রিয়া ও ভাষার ব্যবহার।

আমরা জানি যে ওয়েব সাইট তৈরি করতে এখন অনেক ধরণের ভাষা ও ফ্রেমওয়্যারের ব্যবহার হচ্ছে এর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় ও বেশি ব্যবহ্নিত CMS হচ্ছে WordPress

সারাবিশ্বে যেমন ওয়েব সাইটের ব্যবহার ব্যপকহারে বৃদ্ধি পাচ্ছে তেমনি দিন দিন এ সকল ওয়েব সাইটের নিরাপত্তার ঝুকিও তৈরি হচ্ছে। তাই আমরা যারা ব্যবসায়ের কাজে বা বিভিন্ন প্রয়োজনে ওয়েব সাইট তৈরি করি তাই এর নিরাপত্তা সম্পর্কে আমাদের কিছু জ্ঞান থাকা অত্যান্ত জরুরী।

যেহেতু বেশিরভাগ ওয়েব সাইটই WordPress ব্যবহার করে তৈরি হয়ে থাকে, তাই আজ আমরা জানবো কিভাবে WordPress ওয়েব সাইটকে সুরক্ষিত করা যায় বা কি ধরণের Security এর প্রয়োজন হয় সে সম্পর্কে জানব।

নীচের কয়েকটি ধাপ অনুস্বরণ করে আমরা আমাদের WordPress সাইটকে সর্বাধিক সুরক্ষিত করতে পারি:

 ০১.    আমাদের WordPress ওয়েব সাইটে অনেক সময় User Register করা প্রয়োজন না থাকা সত্ত্বেও আমরা User Register সিস্টেম অন করে রাখি এতে করে আমাদের ওয়েব সাইটের নিরাপত্তার ঝুঁকি তৈরি হয়।

যদি এ ধরণের সিস্টেমের প্রয়োজন হয় তাহলে রাখতে পারেন তবে সেক্ষেত্রে আপনার ইউজারদের কি ধরণের অ্যাক্সেস দিচ্ছেন তা খেয়াল রাখতে হবে যাতে করে কোন ভাবেই যেন তারা আপনার ওয়েব সাইটের ড্যাশবোর্ডের অ্যাক্সেস না পায়।

reCAPTCHA  একটি ক্যাপচা সিস্টেম যা ওয়েব হোস্টকে ওয়েবসাইটগুলিতে মানব এবং স্বয়ংক্রিয় অ্যাক্সেসের মধ্যে পার্থক্য করতে সক্ষম করে তোলে।

 ০২.   আমরা আমাদের সাইটে Google reCAPTCHA এর মত বিষয়গুলি ব্যবহার করতে পারি। যার ফলে যে কোন ধরনের বোটের কাছ থেকে আমাদের সাইট সুরক্ষিত থাকবে এছাড়াও reCAPTCHA ব্যবহারের ফলে কোন ফেক ইউজার অথবা DDOs Attack এর মত বিষয়গুলি থেকে আপনার ওয়েব সাইট সুরক্ষিত থাকবে।

 ০৩.    আমরা আমাদের WordPress ওয়েব সাইটে কিছু security প্লাগিন Install করতে পারি। যেগুলি আমাদের ওয়েব সাইটটিকে নিয়মিত স্ক্যান করে আমাদের বিভিন্ন তথ্য দিবে এবং ভবিষতে কোন ক্ষতির সম্ভাবনা তৈরির আগেই আমাদের সর্তক করবে।

যেমন: Wordfence Security – Firewall & Malware Scan, Jackpack ইত্যাদি অথবা আপনি গুগলে সার্চ করে অনেক ধরণের এরকম প্লাগিন পেয়ে যাবেন।

Jetpack একটি অসাধারন ওয়ার্ডপ্রেস প্ল্যাগিন। এটি বিনামূল্যেই আপনি ব্যবহার করতে পারছেন এবং সেই সাথে প্রিমিয়াম সার্ভিস নিয়ে আপনার ওয়েব  সাইটে WP Security, Backup, Speed, & Growth নিয়ে কাজ করতে পারবেন।

 ০৪.   আমরা আমাদের ওয়েব সাইটের Login পাসওয়ার্ড কিছুটা জটিল করতে পারি। অর্থ্যাৎ এমন কিছু পাসওয়ার্ড হিসেবে ব্যবহার করব না যা আমাদের ওয়েব সাইট সর্ম্পকে একটু চিন্তা করলেই সহজেই বের করা যায়।

এমন কি সাইটের কোন অথোরের নাম ব্যবহার করা থেকেও বিরত থাকতে হবে। পাসওয়ার্ড বিষেশ চিহ্ন ব্যবহার করা সবচেয়ে উত্তম হবে।

 ০৫.   আমাদের ওয়েব সাইটের Login Details কোন সুরক্ষিত যায়গায় রাখতে হবে এবং যে Email ও Username ব্যবহার করেছের তা অন্য কোথাও ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকতে হবে। যেমন আমরা অনেক সময় ভুল করে একই Email আমাদের ওয়েব সাইটের Contact page বা About us এ দিয়ে থাকি বা একই পাসওয়ার্ড অনেক ওয়েব সাইটে ব্যবহার করে থাকি। এধণের বিষয়গুলি বাদ দিলেই আমাদের ওয়েব সাইটের লগইন সিস্টেম অনেকটাই সুরক্ষিত করা সম্ভব।

Wordfence Security – Firewall & Malware Scan বিনামূল্যেই আপনি ব্যবহার করতে পারছেন এবং সেই সাথে প্রিমিয়াম সার্ভিস নিয়ে আপনার ওয়েব সর্বাধিক সুরক্ষিত করতে পারবেন। 

 ০৬.   আমরা এমন কিছু প্লাগিন বা সিস্টেম ব্যবহার করতে পারি যেগুলি আমাদের সাইটকে বিভিন্ন ক্ষতিকারক ভাইরাস ও হ্যাকিং হাত থেকে আমাদের ওয়েব সাইটকে সুরক্ষিত রাখবে।


যেমন আমার সবচেয়ে বিশ্বস্ত একটা প্লাগিন হচ্ছে Wordfence Security – Firewall & Malware Scan যা দিয়ে আপনার ওয়েবসাইট অনেকটা সুরক্ষিত করা যাবে। যেমন:- আপনার সাইটের কেউ ভুল Username ও password দিয়ে বার বার login করার চেষ্টা করলে তার IP Block করে দিবে।

আপনি চাইলে যেকোন দেশের বা অঞ্চলের ইউজারদের আপনার ওয়েব দেখানো বিরত রাখতে পারেন। এটি ছাড়াও আপনি আরোও অনেক ধরণের প্লাগিন পাবেন যা google করে জেনে নিতে পারেন।

 ০৭.   এছাড়াও আপনি যথন আপনার ওয়েব সাইটে কোন প্ল্যাগিন Install করবেন, তখন সেই Plugin সম্পর্কে ভালো-মন্দ google এর মাধ্যমে অবশ্যই জেনে নিবেন অথবা সেই Plugin এর Review অথবা Comments দেখেও ধারণা নিতে পারেন।

কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েব সাইটকে সুরক্ষিত করবেন?

 ০৮.  এমন কোন থিম বা প্লাগিনের ব্যবহার থেকে বিরত থাকতে হবে যেগুলি অনেক বছর ধরে কোন আপডেট করা হয়নি।

 ০৯.  আপনার WordPress ওয়েব সাইটে ব্যবহ্যত সকল থিম ও প্লাগিন সব সময় আপডেট রাখতে হবে।

 ১০.  সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হচ্ছে- আপনার ওয়েব সাইটের c-panel থেকে ওয়েব সাইটে ফোল্ডারটির Rewrite option বন্ধ করে দিতে পারেন। আপনার ওয়েব সাইটের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ফাইল .htaccess এর Rewrite option অবশ্যই বন্ধ করে রাখতে হবে।

এভাবে আপনি আপনার WordPress ওয়েব সাইটকে সুরক্ষিত করতে পারেন। আমরা আশা করছি উপরের ১০ টি পদ্ধতি ব্যবহার করে আপনার ওয়েব সাইটকে অনেকটা নিরাপদ ও সুরক্ষিত করতে পারবেন। ধন্যবাদ।

শেয়ার করুন!

লেখক সম্পর্কে:

স্বাগতম! মো: নাজমুল ইসলাম একজন ওয়েব ডেভলোপার। আমি দীর্ঘদিন ধরে ওয়ার্ডপ্রেস, পিএইচটি, পাইথন ও অন্যান্য প্রোগ্রামিং ভাষা নিয়ে কাজ করছি। এই ওয়েব সাইটে আমি আমার অভিজ্ঞতা থেকে আপনাদের জন্য বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সেরা কন্টেন্ট লিখব ইনশাআল্লাহ!

আপনার মতামত লিখুন!

Your email address will not be published. Required fields are marked

{"email":"Email address invalid","url":"Website address invalid","required":"Required field missing"}
error: বিষয়বস্তু কপিরাইট সুরক্ষিত !!