আজ আমরা মাইক্রোসফট কর্পোরেশনের তৈরি করা Windows অপারেটিং সিস্টেমের একটি দারুন টুলস নিয়ে কথা বলব, আর তা হচ্ছে cmd। CMD বা Command Prompt কি? এর কাজ কি? ও cmd দিয়ে কি কি কাজ করা যায় এই বিষয়গুলি সম্পর্কে জানব। সেই সাথে CMD Prompt Commands list সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। CMD ছাড়াও Microsoft Corporation Windows অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহারকারীদের জন্য PowerShell and Windows Terminal মতো command-line tools তৈরি করেন, তবুও ব্যবহারকারীরা তাদের প্রয়োজনীয় কাজ করতে CMD বা Command Prompt ব্যবহার করেন।

CMD কি?

CMD হচ্ছে Windows অপারেটিং সিস্টেমের একটি interpreter। CMD কে Command Prompt ও বলা হয় যা Windows অপারেটিং সিস্টেমের default command-line interpreter হিসেবে কাজ করে।

এটি Windows অপারেটিং সিস্টেমের সবচেয়ে powerful tools-গুলোর মধ্যে একটি। যারা linux operating system ব্যবহার করেছেন কিংবা যারা বিভিন্ন programing language নিয়ে কাজ করেন তাদের কাছে interpreter অনেকটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

অপারেটিং সিস্টেমের command-line interpreter দিয়ে GUI (graphical user interface) এর প্রায় সকল ধরনের কাজ করা যায়।

কেন CMD ব্যবহার করা হয়?

GUI (graphical user interface) আসার আগে বিভিন্ন অপারেটিং সিস্টেম command-line ব্যবহার করেই চালানো হত। আর এখন ব্যবহারকারীদের operating system ব্যবহারে স্বাচ্ছন্দ্য দিতে GUI ব্যবহার করে বিভিন্ন অপারেশন চালানো হয়।

এতে করে ব্যবহারকারীরা কোন প্রকার Commands না চালিয়ে শুধু মাত্র বাটন বা drag and drop এর মত system ব্যবহার করেই তাদের প্রয়োজনীয় কাজ করে ফেলতে পারেন।

তবে এমন অনেক কাজ রয়েছে যেগুলো করতে অতিরিক্ত কোন প্রোগ্রাম ব্যবহার করার প্রয়োজন পড়বে না, শুধু মাত্র Command Prompt ব্যবহার করেও করা যাবে।

আপনি CMD ব্যবহার করে Windows এর যেকোন ফাংশন চালু করতে ও কাজ করতে পারবেন অনেক দ্রুত। তাই, যদি আপনার টাইপিং করার স্পিড অনেক বেশি ভালো থাকে যেকোন কাজ দ্রুত করতে Windows CMD ব্যবহার করতে পারেন।

CMD ব্যবহার করে কি কি কাজ করতে পারবেন?

একটি অপারেটিং সিস্টেমে আপনার যা করার প্রয়োজন এর প্রায় ৯০% কাজেই আপনি চাইলে CMD (Prompt Commands) ব্যবহার করে করতে পারবেন।

বরং এমন অনেক কাজ রয়েছে যা করতে GUI (graphical user interface) এর চেয়ে দ্রুত করা যায়। আবার অনেক এমন কাজও করতে পারবেন যেগুলো করতে আপনাকে অতিরিক্ত কোন প্রোগ্রাম ইন্সটল করতে হবে না।

CMD ব্যবহার করে আপনার কম্পিউটারের যে কোন প্রোগ্রামকে রান করাতে ও বন্ধ করতে পারবেন। Task manager নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন, folder অথবা directory তৈরি করা, rename, remove, copy, past, delete করতে পারবেন।

সেই সাথে নেটওয়ার্কিং এর কাজে সহায়তার জন্য অনেক ফাংশন ব্যবহার করতে পারবেন এই CMD (Prompt Commands) ব্যবহার করেই। আমরা ধাপে ধাপে আজকে এই অ্যাটিকেলের মাধ্যমে তা আপনাদের দেখাব।

কিভাবে Windows CMD খুলবেন:

Windows run option

Windows operating system ব্যবহারকারীরা start menu গিয়ে programme list থেকে CMD খুঁজে নিতে পারেন অথবা start menu এর search bar গিয়ে cmd লিখলে cmd পেয়ে যাবেন।

আপনি যদি আরও দ্রুত বের করতে চান তাহলে কী বোর্ডের Widows key + R একসাথে চাপলে Run option চলে আসবে, সেখানে cmd লিখে ok বাটনে ক্লিক করলে CMD Commands Prompt চালু হয়ে যাবে।

Basic CMD Commands Prompt

. Logoff (লগঅফ)

Windows cmd command logoff

যদি ভেবে থাকেন দ্রুত Windows থেকে সাইন আউট করে নতুন করে লগইন করবেন তাহলে graphical interface ব্যবহার না করে cmd ব্যবহার করে দ্রুত সাইন আউট করতে পারবেন।

এর জন্য cmd গিয়ে শুধু “logoff” লিখে enter করলেই কম্পিউটার লগআউট হয়ে যাবে।

. Shutdown (সাটডাউন)

Windows shutdown cmd commands

আপনার কম্পিউটার দ্রুত Shutdown করার প্রয়োজন হলে অথবা Shutdown করতে চাইলে আপনি graphical interface ব্যবহার না করে cmd commands prompt গিয়ে “shutdown /s” লিখে enter করলেই আপনার কম্পিউটার খুব দ্রুত shutdown হয়ে যাবে। এতে করে আপনার অনেক সময় বাঁচবে।

. Tasklist (টস্কলিস্ট)

windows tasklist command

অনেক সময় আপনার কম্পিউটারে কি কি প্রোগ্রাম চালু রয়েছে তা দেখার প্রয়োজন পরে। Task Manager চালু করতে cmd commands prompt গিয়ে “tasklist” লিখে enter করলেই Task Manager চালু হয়ে যাবে এবং programme list দেখাবে। কোন কোন সময় অতিরিক্ত প্রোগ্রাম বা সফটওয়্যার সিস্টেমে চালু থাকলে কম্পিউটারের গতি অনেক ধীর হয়ে যেতে পারে।

. Taskkill (টস্ককিল)

অনেক সময় কম্পিউটারে প্রয়োজনের চেয়ে অতিরিক্ত প্রোগ্রাম চালু থাকে। এতে করে কম্পিউটারের কাজের গতি ধীর হয়ে যেতে পারে। তাই সেই সমস্ত অতিরিক্ত প্রোগ্রাম বন্ধ করতে cmd থেকে commands prompt ব্যবহার করে Task Manager চালু করে, অপ্রয়োজনীয় প্রোগ্রাম বন্ধ করতে হবে।

Commands prompt গিয়ে “taskkill /f /im [প্রোগ্রামের নাম]” লিখে enter করলেই হয়ে যাবে অপ্রয়োজনীয় প্রোগ্রামটি বন্ধ হয়ে যাবে।

. Sfc /scannow (সিস্টেম স্ক্যান)

Windows System File Checker

যদি কখনও আপনার operating system এর কোন ফাইল মিসিং হয় বা কোন ড্রাইভে error দেখায় তখন পুরো system টি স্ক্যান করতে পারেন।

স্ক্যান করতে commands prompt গিয়ে “sfc /scannow” লিখে enter করলেই Drive ও system টি scan করা শুরু হয়ে যাবে। আর সেইসাথে কোথাও কোন সমস্যা থাকলে তা আপনাকে দেখাবে।

. প্রোগ্রাম বা সফটওয়্যার চালু করতে:

start any software in cmd command

আপনি cmd (commands prompt) ব্যবহার করে আপনার কম্পিউটারের যে কোন প্রোগ্রাম বা সফটওয়্যার খুলতে বা চালু করতে পারবেন।

এ জন্য commands prompt গিয়ে “start [সফটওয়্যারের নাম.exe]” লিখে enter করলেই ঐ প্রোগ্রাম বা সফটওয়্যার চালু হয়ে যাবে। উদাহরণস্বরূপ: “start notepad.exe”

. Systeminfo (সিস্টেমের তথ্য)

windows system information command

অনেক সময় আমাদের ব্যবহার করা কম্পিউটারের system information জানার প্রয়োজন পরে। যেমন ধরুন: os name, os version, install করা বিভিন্ন card, ram, rom, driver size, কতদিন আগে operating system install করা হয়েছে ইত্যাদি তথ্য।

এগুলো জানতে commands prompt গিয়ে “systeminfo” লিখে enter করলেই ঐসকল তথ্য দেখতে পারবেন।

. IP Configuration (আইপি কনফিগারেশন):

windows cmd ipconfig command

অনেক সময় কম্পিউটারে নেটওয়ার্কগত সমস্যা ও ইন্টারনেটের সমস্যার কারনে পুরো সিস্টেমকে troubleshooting করতে হয়। এতে নেটওয়ার্কের সমস্যা সমাধানে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্যের প্রয়োজন পড়ে।

আর যেগুলো “ipconfig” কমান্ড ব্যবহার করেই মূহূর্তেই বের করে ফেলা যাবে। যেমন: IP address, Subnet Mask, Default Gateway IP, নেটওয়ার্কের current domain নাম ইত্যাদি।

. Netstat:

windows cmd netstat command

আমাদের ব্যবহার করা কম্পিউটারে সন্দেহভাজন কোন সিস্টেম কাজ করছে কি না যা আমাদের কম্পিউটারে থাকা বিভিন্ন তথ্য ইন্টারনেটের মাধ্যমে চুরি করতে পারে। এমন কোন কিছু চেক করতে “netstat” কমান্ডটি ব্যবহার করে দেখতে পারবেন।

কোন TCP connections active আছে কি না তা দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারেন। আমাদের সিস্টেমটি malware আক্রান্ত হলে বা অন্য কোন ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত হলে অনেক ধরনের TCP connections active হয়ে যেতে পারে যা আমাদের সিস্টেমে অনেক ধরনের ক্ষতি করতে পারে।

১০. PING (পিংক)

windows cmd ping command

Ping নেটওয়ার্ক Analyst হিসেবে বন্ধুর ন্যায় কাজ করে। এটির সাহায্যে নির্দিষ্ট কোন ওয়েব সাইট বা সার্ভারে আপনার সিস্টেম ডুকতে পারে কি না তা চেক করা যায়।

সেই সার্ভারের সাথে আপনার সিস্টেমের নেটওয়ার্ক কানেকশন কেমন তা জানতে commands prompt গিয়ে “ping [ঠিকানা লিখুন]” যেমন: “ping google.com” লিখে enter করলেই হয়ে যাবে।

১১. Cls কমান্ড:

আপনি যদি আমাদের দেখানো কমান্ডগুলো প্রাক্টিস করে থাকেন তাহলে আপনার commands prompt টি এই মুহূর্তে কমান্ডে ভর্তি হয়ে যাওয়া কথা।

তাই আপনি এটি ক্লিন বা ক্লিয়ার করতে cmd তে শুধু cls লিখে enter করলেই সব কমান্ড মুছে যাবে ও আপনি নতুন করে আবার কমান্ড লেখা শুরু করতে পারবেন।

বিভিন্ন ধরনের File commands:

এখানে আমরা বিভিন্ন ধরনের ফাইল-ফোল্ডার কিভাবে হ্যান্ডেল করতে হবে তা দেখাবো। এতে করে আপনি জানবেন কিভাবে ফাইল-ফোল্ডার তৈরি করতে হয় ও অন্যান্য কাজ করতে।

১. Dir:

Dir একটি গুরুত্বপূর্ণ কমান্ড যেটির সাহায্যে আপনি যে directory তে আছেন সেখানে আর কি কি ফাইল-ফোল্ডার রয়েছে তা দেখতে পারবেন ও সেগুলোতে চাইলে ডুকতে পারবেন।

২. Cd:

Cmd এর basic একটি কমান্ড হচ্ছে cd। নির্দিষ্ট কোন ফোল্ডারে ডুকতে cd কমান্ড ব্যবহার করা হয়। কোন ফোল্ডারে যেতে cd [path to folder] এভাবে এই কমান্ডটি ব্যবহার করা হয়ে থাকে। আবার কোন ফোল্ডার থেকে বের হতে cd.. কমান্ড ব্যবহার করতে পারেন।

৩. Mkdir ফোল্ডার তৈরি করা:

নির্দিষ্ট কোন যায়গায় ফোল্ডার তৈরি করতে Mkdir কমান্ড ব্যবহার করতে হয়। উদাহরণ: “Mkdir [ফোল্ডারের নাম]”। mkdir [<drive>:]<path>[ফোল্ডারের নাম]

৪. Rename:

কোন ফাইল-ফোল্ডার তৈরি করা হয়ে গেলে যদি কখনো rename করার প্রয়োজন পরে তাহলে ren কমান্ড ব্যবহার করে rename করা যায়। কোন কিছু rename করতে ren [<drive>:][<path>]<filename1> এভাবে কমেন্ট ব্যবহার করুন।

৫. Del ডিলিট করা:

তৈরি করা যেকোন ফাইল-ফোল্ডার ডিলিট করতে চাইলে সেই ফাইলের  আগে del কমান্ড ব্যবহার করতে হবে। উদাহরণস্বরূপ: del [<drive>:][<path>]<filename1> || del cd D:\work1\blog\ \article\text.txt।

শেষ কথা:

এখানে আমরা Windows CMD এর সাধারন কিছু কমান্ড নিয়ে আলোচনা করেছি। এগুলি ছাড়াও Windows CMD ব্যবহার করে আরও অনেক ধরনের কাজ করা সম্ভব। পরে আমরা অন্য কোন অ্যার্টিকেলের মাধ্যমে তা আলোচনা করব। আপনি Windows commands prompt এর সব কমান্ড জানতে cmd তে গিয়ে “help” লিখে সকল কমান্ড লিস্ট দেখতে পারবেন। আর যদি নির্দিষ্ট কোন কমান্ড সম্পর্কে জানতে চান তাহলে cmd তে গিয়ে “help [কমান্ডের নাম]” লিখলে বিস্তারিত চলে আসবে। ধন্যবাদ!

শেয়ার করুন!

লেখক সম্পর্কে:

স্বাগতম! মো: নাজমুল ইসলাম একজন ওয়েব ডেভলোপার। আমি দীর্ঘদিন ধরে ওয়ার্ডপ্রেস, পিএইচটি, পাইথন ও অন্যান্য প্রোগ্রামিং ভাষা নিয়ে কাজ করছি। এই ওয়েব সাইটে আমি আমার অভিজ্ঞতা থেকে আপনাদের জন্য বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সেরা কন্টেন্ট লিখব ইনশাআল্লাহ!

আপনার মতামত লিখুন!

Your email address will not be published. Required fields are marked

{"email":"Email address invalid","url":"Website address invalid","required":"Required field missing"}
error: বিষয়বস্তু কপিরাইট সুরক্ষিত !!